বেপরোয়া বাস চালকরা যেন ওভারটেকের প্রতিযোগিতা করে

134
বেপরোয়া বাস চালকরা যেন ওভারটেকের প্রতিযোগিতা করে
বেপরোয়া বাস চালকরা যেন ওভারটেকের প্রতিযোগিতা করে

তীব্র গতিতে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কে দিয়ে যাচ্ছিল বোগদাদ পরিবহণের যাত্রীবাহী একটি বাস। বেপরোয়া ভাবে প্রতিটি গাড়িকে ওভারটেক করছিলেন চালক। প্রতি বারই আঁতকে উঠছিলেন যাত্রীরা। কিন্তু কে শোনে কার কথা? এ ভাবে কিছুক্ষণ চলার পরে আশঙ্কাই সত্যি হল! নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে গেল বাসটি।

চাঁদপুরগামী বোগদাদ বাস কুমিল্লা মেট্রো ব- ১১-০০৮৪ বাসটি শাহরাস্তি উপজেলার মৌতাবাড়ি ব্রিজ সংলগ্ন দ্রুতগতিতে আশা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বোগদাদ বাসটি উল্টে খালে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে ২ মহিলা যাত্রী নিহত হন। আরও ২৫ জন যাত্রী আহত হয়েছেন বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।

৮ ফেব্রুয়ারি সোমবার বেলা ১১ টার দিকে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক সড়কের মৌতাবাড়ী নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন শহরাস্তি পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড নাওড়া গ্রামের হোমিও ডাক্তার মৃত রণজিৎ দাসের স্ত্রী ও চাঁদপুর হোমিও প্যাথিক কলেজের ডাক্তার প্রভ্রাংসু বিমল দাস সুমনের মা, দীবা রানী (৬৫) এবং কুমিল্লা জেলার নিমসার বুড়িচং উপজেলার হালগাও গ্রামের মৃত সুবল চন্দ্র ভৌমিকের স্ত্রী গীতা রানী ভৌমিক (৬২)।

নিহত দুই জন একে অপরের নিকট আত্মীয়, তারা শাহরাস্তির কালিয়াপাড়া হতে ওই বোগদাদে উঠেন।

শাহরাস্তি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আবদুল মান্নান বলেন, দুর্ঘটনায় দুই মহিলা ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছেন।

শাহরাস্তি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শিরীন আক্তার ও পৌর মেয়র হাজী আঃ লতিফ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কে চলাচলকারী বোগদাদ পরিবহনের বাসগুলো প্রায় এমন বেপরোয়া গতিতে চলার কারণে দুর্ঘটনার শিকার হয়।