‘বিশ্ববিদ্যালয়ের নিম্নবিত্ত, গরিব শিক্ষার্থীদের বিষ দিন।

92

আমরা বিষ খেয়ে মরে যাই। আমাদের পরিবার আমাদের দিকে তাকিয়ে আছে। আমরা যত দ্রুত শেষ করব তত তাড়াতাড়ি বের হয়ে কিছু না কিছু একটা করে পরিবারের পাশে দাঁড়াতে পারব।’

মার্চের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেয়ার দাবিতে এক মানববন্ধনে আক্ষেপ করে কথাগুলো বলেন মার্কেটিং বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র মো. জহির উদ্দীন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার সংলগ্ন এলাকায় সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে রোববার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এই মানববন্ধন হয়। এতে শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা দিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র মো. রাকিব বলেন, ‘সকল দাবিদাওয়া আদায়ে শিক্ষার্থীদের রাস্তায় নামতে হয়েছে। দেশকে এগিয়ে নিতে শিক্ষার্থীদের গুরুত্ব দেন। সকল ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা ভুগতেছে।

‘জবির শিক্ষার্থীদের সকল কিছুতে আন্দোলনে নামতে হয়। আজ আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার কার্যক্রম শুরুর দাবিতে মাঠে নামতে হয়েছে।’

এ সময় শিক্ষকদের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘শিক্ষকেরা তো ঘরে বসে তাদের বেতন পাচ্ছেন। তাই শিক্ষার্থীদের নিয়ে তাদের টেনশন নেই।’

করোনাভাইরাস সংকটের কারণে প্রায় এক বছর বন্ধ থাকা দেশের সব স্কুল-কলেজ আগামী ৩০ মার্চ খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

শনিবার সন্ধ্যায় সচিবালয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

এর আগে ২২ ফেব্রুয়ারি এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানিয়েছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পাঠদান শুরু হবে ২৪ মে। এর আগে হলগুলো খোলা হবে ১৭ মে।