উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে সবগুলো থানা কম্পাউন্ডে একসঙ্গে উদযাপন করবে পুলিশ

173

স্বল্পোন্নত দেশের (এলডিসি) তালিকা থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশপ্রাপ্তি দেশের সবগুলো থানা কম্পাউন্ডে একসঙ্গে উদযাপন করবে পুলিশ। ঐতিহাসিক ৭ মার্চ ওই উদযাপনে স্মরণ করা হবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে।

রাজারবাগ পুলিশ লাইনস অডিটরিয়ামে শুক্রবার সকালে সংবাদ সম্মেলনে এ সিদ্ধান্ত জানান বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশপ্রাপ্তি ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের দিনে দেশব্যাপী উদযাপন করবে পুলিশ। দেশের ৬৬০টি থানায় এদিন বিকেল ৩টায় একযোগে উদযাপন করা হবে।’

আইজিপি জানান, ৭ মার্চ সব থানার বাইরে আলোচনা সভা, প্রীতিভোজ ও মিষ্টি বিতরণ করা হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সবাই অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। পুলিশ সদস্য ছাড়াও স্থানীয় জনপ্রশাসনসহ নেতারা অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।

সবাইকে হাত ধুয়ে, মাস্ক পরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনুষ্ঠানমালায় অংশ নেয়ার আহ্বান জানান পুলিশপ্রধান।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি এলডিসি তালিকা থেকে বের হয়ে যাওয়ার সুপারিশ পায় বাংলাদেশ। জাতিসংঘের কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট পলিসি (সিডিপি) পাঁচ দিনের বৈঠক শেষে এ সুপারিশ করে।

উন্নয়নশীল দেশের কাতারে যেতে এবার বাংলাদেশের প্রস্তুতি পর্ব শুরু হবে। এ পর্ব শেষে ২০২৬ সালে উন্নয়নশীল দেশে ওঠার সব প্রক্রিয়া শেষ হবে।

যেসব দেশ অর্থনৈতিকভাবে তুলনামূলক দুর্বল, সেসব দেশকে স্বল্পোন্নত দেশ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ১৯৭১ সালে প্রথম স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা করা হয়। বাংলাদেশ ১৯৭৫ সালে এই তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়।

আইজিপি বলেন, ‘২০০৮ সালের পর থেকে বাংলাদেশের উন্নয়নে আমূল পরিবর্তন এসেছে। দারিদ্র্য অনেক কমে এখন মিউজিয়ামে যাওয়ার উপক্রম। আগে সবাই বলত ইলেকট্রিসিটি কবে আসবে, এখন বলে কবে যাবে। দেশের এসব উন্নয়নকেই উদযাপন করবে পুলিশ।’