লুবাবার দেখা হয়েছে ভারতীয় চলচ্চিত্রের একঝাঁক তারকার সঙ্গে

65

শনিবার ভোর সাতটায় ছিল ফেরার উড়োজাহাজ। শুটিং শেষে ভারতের হায়দরাবাদের পাঁচ তারকা হোটেল পার্ক হায়াতে শিশুশিল্পী শিমরিন লুবাবারা তখনো ঘুমে। ফলাফল প্লেন মিস। ফলে আরও একটা দিন সেখানেই থাকা হলো লুবাবার, যেখানে দেখা হয়েছে দক্ষিণ ভারতীয় চলচ্চিত্রের একঝাঁক তারকার সঙ্গে। সাই পল্লবী, রানা দাগুবতি, বিজয় দেবারাকোন্ডা, সোনু সুদ, অঞ্জলি, নিধি আগারওয়াল, শিয়ামি খের, নাগার্জুনা আক্কিনেনিসহ আরও অনেকের সঙ্গেই সাক্ষাৎ আর ছবি তোলা হয়েছে। তেলেগু ভাষার ‘ওয়াইল্ড ডগ’ সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছে ২ এপ্রিল। ওই হোটেলে তারই বিশেষ প্রদর্শনীতে উপস্থিত ছিলেন শেষের দুজন।

সাই পল্লবীর সঙ্গে লুবাবা
সাই পল্লবীর সঙ্গে লুবাবা 

শিশুশিল্পী লুবাবার আরেক পরিচয়, সে প্রয়াত গুণী অভিনেতা আবদুল কাদেরের নাতনি। এই প্রথম হায়দরাবাদে আসা হলেও লুবাবা তাঁর দাদার সঙ্গে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ঘুরেছে। হায়দরাবাদে গিয়েছিল একটি সিনেমার শুটিংয়ে। যে হোটেলে ছিলেন, সেখানে শুটিং, সিনেমার প্রদর্শনীসহ নানা কাজে ছিল অসংখ্য দক্ষিণ ভারতীয় তারকা। উঠতে–বসতে, সকালের নাশতায়, লিফটের লাইনে দেখা হয়েছে তাঁদের সঙ্গে। সকালের নাশতা খেতে বসেছে। একই সময়ে জনপ্রিয় তারকা সাই পল্লবীও সেখানে এসেছেন। লুবাবাকে দেখেই সাই হাসিমুখে হাত নেড়ে বলেছেন, ‘হাই।’

রানা দাগুবতির সঙ্গে লুবাবা
রানা দাগুবতির সঙ্গে লুবাবা 

লুবাবা ‘রাউডি বেবি’ গানের সুবাদে ভালোই চেনে সাইকে। হঠাৎ দেখায় ‘এক্সাইটেড’ লুবাবা দৌড়ে গিয়ে জড়িয়ে ধরল সাই পল্লবীকে। সাইও সুন্দর করে কথা বলেছেন লুবাবা আর তার মায়ের সঙ্গে। একসঙ্গে বেশ কয়েকটি ছবিও তুলেছেন তাঁরা।

লুবাবার মা হায়দরাবাদ থেকে হোয়াটসঅ্যাপে প্রথম আলোকে বলেন, ‘সাই পল্লবী এত বড় তারকা, তবু কী অসাধারণ! তাঁর তো কোনো দরকার ছিল না লুবাবাকে দেখে “হাই” দেওয়ার, এগিয়ে আসার। আমি তাই আমার মেয়েকে বলি, দেখো, এই নাহলে তারকা! আচরণ একটা মানুষকে তারকা বানায়। সাই পল্লবীও সিনেমার শুটিংয়ে এখানে এসেছেন।’

লুবাবা সবে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ছে। তার মা জানালেন, তিনি এখনই মেয়ের ক্যারিয়ার, অভিনয়, শুটিং নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছেন না। আপাতত সব মনোযোগ লুবাবার পড়াশোনায়। এর ফাঁকে ফাঁকে যদি কোনো ভালো কাজ, গল্প, চরিত্রের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার সুযোগ থাকে, ব্যাটে–বলে মিললে ভেবে দেখবেন। লুবাবার দাদা আবদুল কাদের চাইতেন, তাঁর নাতনি গান করুক। তাই গান আর পড়াশোনা—এই দুটোই এই মুহূর্তে মুখ্য। লুবাবা অভিনয়কে পেশা হিসেবে নেবে কি না, সেই প্রশ্ন তোলা থাকল সময়ের কাছে।