স্ত্রীকে হত্যা করে সড়ক দুর্ঘটনার নাটক সাজালো স্বামী

67

প্রথমে হত্যা, এরপর দুর্ঘটনার নাটক। যেন সিনেমার গল্পকেও হার মানায়। রাজধানীর অভিজাত এলাকা গুলশানে স্ত্রী ঝিলিককে হত্যা করে দুর্ঘটনার নাটক সাজায় তার স্বামী সাকিব আলম। এমনটায় অভিযোগ নিহতের মায়ের।

পুলিশের প্রাথমিক তদন্তেও উঠে এসেছে হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী ও কেয়ারটেকারকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার সকাল ৯টা ৮মিনিট। সিসিটিভির ফুটেজে দেখা যায়, দুজন বুয়া ও বাড়ির কেয়ারটেকারের সহযোগিতায় দ্বিতীয় তলা থেকে নামানো হচ্ছে ঝিলিকের দেহ। পরে চাদরে মোড়ানো দেহটি ঢোকানো হয় প্রাইভেটকারের ভেতরে।

এরপরই সকাল সাড়ে নয়টার দিকে দুর্ঘটনার শিকার হয় ওই প্রাইভেটকার। তখন চালক ঝিলিকের স্বামী দাবি করেন, আহত স্ত্রীকে হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু ডাক্তার পুলিশকে জানায়, অনেক আগেই মারা গেছেন ঝিলিক। শরীরে মেলে আঘাতের চিহ্নও। এরপরই আটক করা হয় স্বামী সাকিব আলম ও কেয়ারটেকার আনিসুরকে।

ঘটনার সত্যতা জানতে ঘটনাস্থলে গেলে বাড়ির ম্যানেজারও জানিয়েছে, ঝিলিককে যখন নিচে নামানো হয় তখন নড়াচড়া করছিলো না। আর নিহতের দেবর জানিয়েছেন, সকাল আটটার দিকে মৃত্যুর বিষয়টি জানতে পারেন তারা।

এদিকে, নিহত ঝিলিকের মায়ের অভিযোগ তার মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে। এর আগেও নানাভাবে নির্যাতন করা হতো তার মেয়েকে।

হত্যার পর পরিকল্পিতভাবে দুর্ঘটনার নাটক সাজানো হয়েছে কিনা সেটিও তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।