চেলসি–ম্যান সিটি সুপার লিগ থেকে বেরিয়ে যেতে পারে

36

চাপ, চাপ আর চাপ। পাহাড়সমান চাপ ধেয়ে যাচ্ছে ইউরোপিয়ান সুপার লিগে নাম লেখানো ৬টি ক্লাবের দিকে। সমর্থকেরা চাপ দিচ্ছেন, সাধারণ ফুটবলপ্রেমীরা চাপ দিচ্ছেন। চাপ দিচ্ছেন ইংল্যান্ডের সাবেক ফুটবলার থেকে শুরু করে ফুটবল–পণ্ডিতেরা। চাপ ধেয়ে যাচ্ছে সরকারের দিক থেকেও। চেলসি, লিভারপুল, ম্যানচেস্টার সিটি, টটেনহাম, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও আর্সেনাল—ইংল্যান্ড থেকে ইউরোপিয়ান সুপার লিগে নাম লিখিয়েছে এ ছয়টি দল।

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক তারকা গ্যারি নেভিল মনে করেন এই ছয় দলের মধ্যে পাহাড়ের মতো চাপের কাছে ভেঙে পড়বে চেলসি ও ম্যানচেস্টার সিটি। কেন আর কীভাবে এ দুটি দল চাপের কাছে হেরে ইউরোপিয়ান সুপার লিগ থেকে বেরিয়ে আসতে পারে, সে ব্যাখ্যাও দিয়েছেন ইংল্যান্ডের সাবেক ডিফেন্ডার।

এমনকি দলের সিনিয়র খেলোয়াড়সহ লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপও মালিকপক্ষকে ইউরোপিয়ান সুপার লিগ থেকে বেরিয়ে আসার জন্য চাপ দিতে পারেন বলে মনে করেন নেভিল।

ফুটবলপ্রেমী আর দলগুলোর সমর্থকদের সঙ্গে যেন একাত্মতা ঘোষণা করেছেন খেলোয়াড়েরা। সুপার লিগ নয়, তাঁদের কাছে চ্যাম্পিয়নস লিগের মূল্য বেশি বলেই জানিয়েছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পর্তুগিজ তারকা ব্রুনো ফার্নান্দেজ ও আর্সেনালের সাবেক মিডফিল্ডার মেসুত ওজিলসহ অনেকেই। লিভারপুলের অধিনায়ক জর্ডান হেন্ডারসন আজ রাতে প্রিমিয়ার লিগের বিভিন্ন দলের অধিনায়ক ও খেলোয়াড়দের নিয়ে বিশেষ সভা ডেকেছেন।

দেখা যাক, এত প্রতিবাদের তোড়েও বিদ্রোহী ফুটবল লিগটা দাঁড়িয়ে থাকতে পারে, নাকি প্রতিবাদের স্রোতে ভেসে যায়!