গরু চুরির অপবাদ দিয়ে রিকশাচালকের ২ পায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন

101

এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে এসপি জানান, গরু চুরির সন্দেহে শনিবার সন্ধ্যায় স্থানীয় ইউপি সদস্য রফিকুল তোতা মিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। কিন্তু তোতা অস্বীকার করলে নির্জন মাঠের মধ্যে গাছের সঙ্গে বেঁধে তার হাতের তালুতে সিগারেটের আগুন দিয়ে ছেঁকা দেয়।

জয়পুরহাটে গরু চুরির অপবাদ দিয়ে এক রিকশাচালককে পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) এক সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সদর উপজেলার ধারকি পাথারপাড়া এলাকা থেকে রোববার সকালে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তি রফিকুল ইসলাম ধারকি পাথারপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। তিনি বম্বু ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য।

নির্যাতনের শিকার তোতা মিয়া একই এলাকার বাসিন্দা।

জয়পুরহাট পুলিশ সুপার (এসপি) মাছুম আহাম্মেদ ভুঞা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে তিনি জানান, গরু চুরির সন্দেহে শনিবার সন্ধ্যায় স্থানীয় ইউপি সদস্য রফিকুল তোতা মিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

পরে মাঝরাতে ইউপি সদস্যসহ একই গ্রামের জুয়েল, আবু খয়ের ও নিজাম নামের তিন যুবক তোতাকে ডেকে নিয়ে গরু চুরির স্বীকারোক্তি আদায়ের চেষ্টা করেন। কিন্তু তোতা মিয়া অস্বীকার করলে নির্জন মাঠের মধ্যে গাছের সঙ্গে পিছমোড়া করে বেঁধে হাতের তালুতে প্রথমে সিগারেটের আগুন দিয়ে ছ্যাঁকা দেন

এক পর্যায়ে তারা তোতার কোমর থেকে পা পর্যন্ত পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। এতে তোতা দগ্ধ হয়ে জ্ঞান হারান। এক সময় রাত সাড়ে ৩টার দিকে তারা তোতাকে মুমূর্ষু অবস্থায় জেলা আধুনিক হাসপাতালে ফেলে পালিয়ে যান।

খবর পেয়ে পুলিশ ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলামকে রোববার ভোর রাতে তার বাড়ি থেকে আটক করা হয়।

এ ঘটনায় জয়পুরহাট সদর থানায় তোতার স্ত্রী ডলি বেগম ইউপি সদস্য রফিকুলসহ তিনজনের নামে ও অজ্ঞাত পরিচয়ে আরও ৬-৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

ঘটনার সঙ্গে জড়িত প্রত্যেককে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান এসপি। গ্রেপ্তার রফিকুল ইসলামকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে