ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে আজ

27

প্রচণ্ড তাপদাহে অতীষ্ঠ জনজীবন। রোদের তীব্রতায় বাইরে বের হওয়ার জো নেই। ঘরেও প্রচণ্ড তাপ। গরমে স্বস্তি মিলতে পারে আজ। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, আজ দেশের কোথাও কোথাও ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি হতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের বুধবারের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, কুমিল্লা ও কুষ্টিয়া অঞ্চলসহ বিভাগীয় শহর রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, সিলেট ও ঢাকা বিভাগের দু–এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি কিংবা বজ্রসহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এ ছাড়া দেশের অন্যান্য স্থানে ‘অস্থায়ীভাবে’ আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া মূলত শুষ্ক থাকবে।

এ ছাড়া ঢাকাসহ কিছু জায়গায় আজ দেরিতে রোদের মুখ দেখা গেলেও রোদের তীব্রতা তুলনামূলকভাবে কম ছিল। সকালের দিকে কিছু স্থানে আকাশ মেঘলা দেখা গেছে। যদিও সকালে ঢাকা, রংপুর, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের ওপর দিয়ে ‘মৃদু তাপপ্রবাহ’ থেকে ‘মাঝারি তাপপ্রবাহ’ বয়ে যাচ্ছে, তা কিছু জায়গায় কমতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। 

‘মৃদু তাপপ্রবাহ’ থেকে ‘মাঝারি তাপপ্রবাহ’ বয়ে যাচ্ছে সীতাকুণ্ড, হাতিয়া, রাঙামাটি, কুমিল্লা, মাইজদীকোর্ট, ফেনী, রাজশাহী ও পাবনা অঞ্চলেও।

আজ দেশজুড়ে দিনের তাপমাত্রা কমার ইঙ্গিত দিলেও রাতের তাপমাত্রা সামান্য বাড়ার কথা জানানো হয়েছে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে।

আবহাওয়াবিদদের মতে, থার্মোমিটারের পারদ ৩৬ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে উঠলে তাকে বলে ‘মৃদু তাপপ্রবাহ’। উষ্ণতা যদি ৩৮ থেকে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস হয়, তাকে বলা হয় ‘মাঝারি তাপপ্রবাহ’। তবে তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি পেরোলে তাকে বলা হয় ‘তীব্র তাপপ্রবাহ’।

টানা কয়েক দিন গরমে হাঁসফাঁস অবস্থার মধ্যে গতকাল সারা দেশে তাপমাত্রা কিছুটা কম ছিল। গতকাল খুলনার তাপমাত্রা ছিল ৩৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যশোরে ৩৮ ডিগ্রি ও রাজশাহীতে ৩৮ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।এ ছাড়া গতকাল সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে শ্রীমঙ্গলে ৩৮ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।