আওয়ামী লীগ নেতাকে ছাড়াতে নেতাকর্মীর থানা ঘে’রাও

87

বরিশালে চাঁদাবাজী মামলায় গ্রেপ্তারকৃত ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতাকে ছাড়িয়ে নিতে থানা ঘেরাও করেছেন মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। ওই কর্মীকে ছাড়া না হলে কঠোর কর্মসূচির ঘোষণাও দিয়েছেন তারা। সোমবার (১৭ মে) দুপুরে মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মোটরসাইকেলের বহর নিয়ে বরিশাল এয়ারপোর্ট থানা ঘেরাও করে গ্রেপ্তারকৃত নেতাকে ছাড়িয়ে নিতে বিক্ষোভ করেন।

জানা যায়, কাশিপুরে ব্যাটারিচালিত হলুদ অটো থেকে চাঁদাবাজির ঘটনায় প্রতিবাদ করায় ২৯ মার্চ ২৮নং ওয়ার্ড সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সহ সভাপতি গোলাম রসূল সহ বেশ কয়েকজনের উপর হামলা চালানো হয়। এরপর ৩০ মার্চ এয়ারপোর্ট থানায় গোলাম রসূল বাদী হয়ে সেখানকার আওয়ামী লীগ কর্মী রিপন মাঝি সহ ৬ জনের নাম উল্লেখ এবং ১০ জনকে অজ্ঞাত করে একটি চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় রোববার পুলিশ রিপন মাঝিকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

এই ঘটনার প্রতিবাদে বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসান মাহামুদ বাবুর নেতৃত্বে দুপুরে মহানগর আওয়ামী লীগের কয়েকশ নেতাকর্মী মোটরসাইকেল বহর নিয়ে এয়ারপোর্ট থানা ঘেরাও করে। নেতাকর্মীরা ঘন্টাব্যাপী বিক্ষোভ শেষে রিপন মাঝিকে মুক্তি না দিলে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন।

পরে সেখান থেকে এসে নেতাকর্মীরা নগরীর সোহেল চত্বরস্থ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ এবং রিপনকে অবিলম্বে মুক্তির দাবি করেন।

মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসান মাহামুদ বাবু বলেন, মুজিব প্রেমী আমাদের ওই ভাইকে মুক্তি দেয়া না হলে আমরা কঠোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে বাধ্য হব।

বরিশাল এয়ারপোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কমলেশ চন্দ্র হালদার বলেন, এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করায় কিছু লোকজন থানার সামনে জড়ো হয়েছিলো। পরে তাদের বুঝিয়ে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিকে সকালে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।