নারী কর্মীর সঙ্গে সম্পর্ক, পদত্যাগে বাধ্য হন বিল গেটস

39

মাইক্রোসফটের পরিচালনা পর্ষদ থেকে ২০২০ সালে পদত্যাগ করেন বিল গেটস, তবে স্বেচ্ছায় নয়। মাইক্রোসফটের এক নারী কর্মীর সঙ্গে বিল গেটসের পুরোনো সম্পর্ক ক্ষতিয়ে দেখতে আইনি প্রতিষ্ঠান নিয়োগ করে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদ। এরপর পদত্যাগে বাধ্য হন তিনি। দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল গতকাল রোববার এসব কথা জানিয়েছে।

ঘটনাটি সম্পর্কে জানতেন, এমন অনেকের বরাত দিয়ে মার্কিন দৈনিকটি লিখেছে, ‘মাইক্রোসফটের ওই প্রকৌশলী এক চিঠিতে বিল গেটসের সঙ্গে বেশ কয়েক বছরের শারীরিক সম্পর্কের কথা উল্লেখ করেছেন। তদন্তের সময় মাইক্রোসফটের কিছু বোর্ড সদস্য সিদ্ধান্ত নেন, নিজের প্রতিষ্ঠিত সফটওয়্যার তৈরির প্রতিষ্ঠানে পরিচালক হিসেবে বিল গেটস আর উপযুক্ত নন। এরপর তদন্ত শেষ হওয়ার আগেই পদত্যাগ করেন বিল গেটস। ’

ওই প্রতিবেদনে নারী কর্মীটির পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি। এদিকে ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদনের সূত্র ধরে সংবাদ প্রকাশ করলেও সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তারা অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করতে পারেনি।

সিএনএনকে মাইক্রোসফটের এক মুখপাত্র বলেছেন, ২০১৯ সালের দ্বিতীয়ার্ধে মাইক্রোসফট একটি অভিযোগ পায়। সেখানে বলা ছিল, ২০০০ সালে প্রতিষ্ঠানের এক কর্মীর সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করেন বিল গেটস। আইনি প্রতিষ্ঠানের সাহায্য নিয়ে পরিচালনা পর্ষদের এক কমিটি অভিযোগটি ক্ষতিয়ে দেখে। তদন্তের সময়ে অভিযোগকারী কর্মীকে যথাযথ সহায়তা দিয়েছে মাইক্রোসফট।

বিল গেটসের একজন মুখপাত্র দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে বলেন, প্রায় ২০ বছর আগে সম্পর্কের একটি ব্যাপার ছিল, যা শান্তিপূর্ণভাবে মীমাংসা করা হয়। পরিচালনা পর্ষদ থেকে বিলের সরে দাঁড়ানোর সঙ্গে সেটির কোনো সম্পর্ক নেই। তিনি মূলত তাঁর দাতব্য সংস্থায় আরও বেশি সময় দিতে চেয়েছিলেন।

মাইক্রোসফটের বোর্ড থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত জানিয়ে ২০২০ সালের মার্চে প্রকাশিত বিল গেটসের একটি পত্রের উল্লেখ করেন তিনি। সেখানে একই কথা বলেছিলেন বিল।

নিউইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনেও ‘ঘটনাগুলোর সঙ্গে সরাসরি যুক্ত’ ব্যক্তিদের বরাত দিয়ে লেখা হয়েছে, মাইক্রোসফট এবং বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনে কাজ করেছেন, এমন নারীদের সঙ্গে অন্তত বেশ কয়েকবার সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করেছেন বিল গেটস।

বিল গেটসের মুখপাত্র নিউইয়র্ক টাইমসকে বলেছেন, বিল গেটসের বিবাহবিচ্ছেদের কারণ, পরিস্থিতি ও সময় নিয়ে এত বেশি মিথ্যা সংবাদ প্রকাশিত হচ্ছে, যেটা খুবই হতাশাজনক।

কর্মীদের সঙ্গে অসদাচরণের দাবিটিও মিথ্যা বলে উল্লেখ করেছেন ওই মুখপাত্র। ঘটনাটি সম্পর্কে অল্প জানে কিংবা একদমই অজ্ঞ মানুষদের ‘সূত্র’ হিসেবে উল্লেখ করাকে দুর্ভাগ্যজনক বলেন তিনি। সঙ্গে যোগ করেন, গেটসের বিচ্ছেদ নিয়ে রটানো গুজব ও অনুমান দিন দিন অযৌক্তিক হয়ে উঠছে।

চলতি মাসেই বিলের সঙ্গে বিচ্ছেদের আবেদন করেন তাঁর স্ত্রী ও দাতব্য সংস্থাটির সহপ্রতিষ্ঠাতা মেলিন্ডা গেটস। বিচ্ছেদের ঘোষণা দিয়ে এক যৌথ বিবৃতিতে তাঁরা লেখেন, অনেক ভেবেচিন্তেই তাঁরা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

বিল গেটস বিশ্বের শীর্ষ ধনীদের একজন। ব্লুমবার্গ বিলিয়নিয়ার ইনডেক্স অনুযায়ী তাঁর নিট সম্পদের পরিমাণ ১৪ হাজার ৪০০ কোটি মার্কিন ডলার।