গোপালগঞ্জ মুকসুদপুরে ৫ জন মিলে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণ

191

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে ৫ বন্ধু মিলে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে (১৪) গণধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলা বানিয়ারচর গ্রামের কারিতাস ট্রেনিং স্কুলের পাশে বৌবাজার চর এলাকায় এ গণধর্ষণ করা হয়। মঙ্গলবার থানায় মামলা দায়েরের পর পুলিশ ওই কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

মুকসুদপুর থানা সূত্রে জানা গেছে, সোমবার রাতে ওই কিশোরীর মায়ের দেয়া অভিযোগটি মঙ্গলবার মামলা হিসেবে গ্রহণ করা হয়। এতে পাঁচজনকে আসামি করা হয়েছে।

মামলার সূত্রে জানা গেছে, ১৫ মে ওই কিশোরী উপবৃত্তির টাকার তোলার জন্য বাড়ি থেকে জলিলপাড় বাজারে যায়। টাকা তুলে বাড়ি ফিরতে সন্ধ্যা হয়ে যায়। এ সময় বানিয়ারচর গ্রামের কৃষ্ণ কীর্তনীয়া ছেলে কল্লোল কীর্তনীয়া (২৪), সুভঙ্কর কৃর্তনীয়ার ছেলে সৌরভ কৃর্তনীয়া (২০), হরি মোহন কৃতর্নীয়া ছেলে সঞ্জিত কৃতনীয়া (২২), জগদিশ মোহন্তর ছেলে জয় মোহন্ত (২১) ও কঙ্কন হাওলাদারের ছেলে শিপু হাওলাদার (২৩) মিলে ওই স্কুলছাত্রীকে বাড়ি পৌঁছে দেয়ার কথা বলে গ্রামের বৌবাজার চর এলাকায় নিয়ে তাকে গণধর্ষণ করেন। একপর্যায়ে স্কুলছাত্রীর চিৎকারে লোকজন এগিয়ে এলে ওই পাঁচ বন্ধু পালিয়ে যান। পরে স্থানীয়রা কিশোরীকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে বাড়ি পৌঁছে দেয়।

মুকসুদপুর থানার সেকেন্ড অফিসার সাইফুল ইসলাম জানান, সোমবার রাত ১২টার দিকে ধর্ষণের একটি অভিযোগ পেয়েছি। এ বিষয়ে প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পেয়ে মঙ্গলবার পাঁচজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

মুকসুদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু কবর মিয়া জানান, আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।