ধর্ষণ চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে ছিনতাই, গ্রেফতার ০১

57

পেশায় একজন পরিচ্ছন্নতাকর্মী সায়মা(ছদ্মনাম)। গত ০৩ বছর ধরে তিনি ডাবলমুরিং মডেল থানাধীন আশকারাবাদ এলাকায় অবস্থিত একটি ডায়গনস্টিক সেন্টারে পরিচ্ছন্নতাকর্মী হিসেবে কাজ করছেন।

প্রতিদিনের মত তিনি গত ১৭ মে, ২০২১ খ্রী সকাল ০৭ঃ০০ ঘটিকায় ডায়গনস্টিক সেন্টারে এসে পরিচ্ছন্নতার কাজ শুরু করেন। এ সময় মোঃ রুবেল নামে এক ব্যাক্তি ডায়গনস্টিক সেন্টারে এসে ভিকটিম সায়মার কাছে দাতের ডাক্তার আছে কিনা জিজ্ঞেস করে। এ সময় ডায়গনস্টিক সেন্টারে কেউ না থাকার সুযোগে সে রেঞ্জ নিয়ে ভিকটিম সায়মাকে মুখ চেপে ধরে মৃত্যু ভয় দেখায় এবং জোরপূর্বক তাকে মাটিতে ফেলে দিয়ে ধর্ষণ চেষ্টা করে।

কিন্তু ভিকটিমের ধস্তাধস্তিতে সে ব্যর্থ হয়ে তার কাছে থাকা টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এছাড়াও অফিসের ডেস্কে থাকা টাকা পয়সাও নিয়ে যায়। উক্ত ঘটনায় ভিকটিম বাদী হয়ে ডাবলমুরিং থানায় একটি নিয়মিত মামলা রুজু করে।

উক্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে ডাবলমুরিং মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব মোহাম্মদ মুহসিন, পিপিএম এর নির্দেশে এস আই/ মোঃ তারেক আজিজের নেতৃত্বে এস আই/ মহিম উদ্দিন সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্স সহ আসামী গ্রেফতারে অভিযান পরিচালনা করে।

ডাবলমুরিং থানা টিম মামলার ঘটনাস্থল থেকে উক্ত ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে আসামীর চেহারা সনাক্ত করে তাকে গ্রেফতারে মাঠে নামে। কিন্তু আসামী ভাসমান হওয়ায় তাকে কেউ চিনতে পারছিল না। এসময় স্থানীয় এক দোকানদার তাকে হালিশহর থানার পানির কল মোড়ে দেখা গেছে বলে জানান। সেখানে গিয়েই তার দেখা মেলে। কিন্তু পুলিশ দেখেই সে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। সেখান থেকে ধাওয়া করে পাহাড়তলী থানার নাজির বাড়ি পর্যন্ত প্রায় দেড় কিলোমিটার ধাওয়া করে গত ১৮ মে, ২০২১ খ্রী মোঃ রুবেল কে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত ব্যাক্তির বিরুদ্ধে পূর্বেও নগরীর বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা বিজ্ঞ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।