ছাত্রীকে যৌন হয়রানি, প্রধান শিক্ষক গ্রেফতার

83

পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রীকে (১১) যৌন হয়রারির অভিযোগে বাগেরহাটের শরণখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শহিদুল হাওলাদারের (৪৫) নামে মামলা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে ছাত্রীর বাবা মামলাটি করেছেন। মামলার পর অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ।

উপজেলার সাউথখালী ইউনিয়নের বগী-চালিতাবুনিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল কাদের হাওলাদারের ছেলে অভিযুক্ত শহিদুল হাওলাদার ওই ইউনিয়নের ৪৭নম্বর শরণখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পদে কর্মরত। গত ৩ জুন সকাল পৌনে ১০টার দিকে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের অফিস কক্ষে ঘটনাটি ঘটেছে। ভিকটিমের বাড়িও একই ইউনিয়নের সোনাতলা গ্রামে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ঘটনার দিন সকালে প্রধান শিক্ষক শহিদুল হাওলাদার ফোন করে ওই ছাত্রীকে পঞ্চম শ্রেণীর রেজিষ্ট্রেশনের জন্য জন্ম নিবন্ধন সনদ ও মা-বাবার জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি নিয়ে স্কুলে যেতে বলেন। তখন ওই ছাত্রী কাগজপত্র নিয়ে বিদ্যালয়ে গেলে প্রধান শিক্ষক তার কক্ষে বসে মেয়েটিকে একা পেয়ে যৌন হয়রানি করেন। পরে মেয়েটি বাড়িতে গিয়ে ঘটনাটি তার মা-বাবাকে জানায়। এর পর অভিযুক্ত শিক্ষকের পরিবার বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসার চেষ্টা করে। কিন্তু ভিকটিমের পরিবার তাতে রাজি না হওয়ায় ঘটনার পাঁচ দিন পর মামলা করা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শরণখোলা থানার উপপরিদর্শক স্বপন কুমার সরকার জানান, যৌন হয়রানির অভিযোগে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ২০০০ (সংশোধনী ২০০৩) সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১০ ধারায় মামলা হয়েছে।

শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: সাইদুর রহমান জানান, অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক শহিদুল হাওলাদারকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। জবানবন্দির জন্য ভিকটিমকেও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পঠানো হয়েছে।