করোনা প্রতিরোধে সোমবার থেকে থাইল্যান্ডে কারফিউ

41

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে রাজধানী ব্যাংকক ও চারপাশের অন্তত ছয় প্রদেশে রাতের বেলা সাত ঘণ্টা কারফিউ জারি করতে যাচ্ছে থাইল্যান্ড। শুক্রবার টেলিভিশনে দেশটির করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় স্থাপিত সেন্টার ফর কোভিড-১৯ সিচুয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (সিসিএসএ) প্রচারিত এক বিবৃতিতে এই তথ্য জানানো হয়।

এর আগে সিসিএসএ কর্তৃপক্ষ শুক্রবার এক দীর্ঘ বৈঠকে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়। সিসিএসএ মুখপাত্র নাতাপানু নোপাকান বিবৃতিতে বলেন, সোমবার থেকে প্রতি রাতে এই কারফিউ চালু হতে যাচ্ছে। রাত ৯টা থেকে ২টা পর্যন্ত এই কারফিউর আওতায় সবাইকে ঘরে থাকার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

কারফিউর আওতায় সব ধরনের গণপরিবহণ ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হবে জানানো হয়। তবে সুপার মার্কেট, রেস্টুরেন্ট, ব্যাংক, ফার্মেসি ও ইলেকট্রনিকসের দোকান কারফিউতে খোলা থাকবে।

দেশটিতে গত এপ্রিলে শুরু হওয়া সংক্রমণের তৃতীয় ধাপে দৈনিক সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। শনিবার ব্যাংকক পোস্টের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, দেশটিতে ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৯১ জন। এসময় আক্রান্ত হয়েছেন নয় হাজার তিন শ’ ২৬ জন।

এই সিদ্ধান্তের ফলে রাজধানীর এক কোটির বেশি লোকের পাশপাশি আশপাশের এলাকা এবং দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশের জনগণের ওপর প্রভাব পড়বে।

জরিপ ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, শনিবার দুপর ২.৩০ মিনিট পর্যন্ত থাইল্যান্ডে করোনাভাইরাস সংক্রমণে মোট তিন লাখ ২৬ হাজার আট শ’ ৩২ জন আক্রান্ত হয়েছেন। ভাইরাস সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে দুই হাজার ছয় শ’ ২৫ জন।

সূত্র : ভয়েস অব আমেরিকা