আমিরাতকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে বাংলাদেশ

78

অনূর্ধ্ব-‌১৯ বিশ্বকাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে প্রতিপক্ষ সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে ৯ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। ফলে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত হয়ে গেছে আসরটির বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের।

শুরুতে ব্যাটিং করে বাংলাদেশের বোলারদের তোপে পড়ে মাত্র ১৪৮ রানেই গুটিয়ে যায় আমিরাতের যুবারা। ম্যাচের মধ্যে বৃষ্টি বাগড়া দিলে ৩৫ ওভারে সেই লক্ষ্য দাঁড়ায় ১০৭ রানে। ২৪.৫ ওভারে মাত্র ১ উইকেট হারিয়েই সেই লক্ষ্যে পৌঁছায় রাকিবুল হাসানের দল।

আমিরাতের দেয়া ১৪৯ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে দুই ওপেনার মাহফিজুল ইসলাম ও ইফতেখার হোসাইন উদ্বোধনী জুটিতেই তোলেন ৮৬ রান। এরপরই বাগড়া দেয় বৃষ্টি। ইফতেখার আউট হলেও ওয়ান ডাউনে নামা প্রান্তিক নওরোজ নাবিলকে নিয়ে ১১০ রানের রানের লক্ষ্যে পৌঁছান মাহফিজুল। তিনি অপরাজিত থাকেন ৬৪ রানে। ইফতেখার করেছেন ৩৭ রান।

এর আগে, টস জিতে শুরুতে আরব আমিরাতের যুবাদের ব্যাটিংয়ে পাঠান বাংলাদেশের অধিনায়ক রাকিবুল হাসান। দলীয় ৮ রানেই দুই টপঅর্ডার ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বিপর্যয়ে পড়ে আরব আমিরাত। তৃতীয় উইকেট জুটিতে ৪৬ রানের জুটি গড়েন ধ্রব পরশর ও অধিনায়ক আলিশান শরাফু। দলীয় ৫২ রানে ব্যক্তিগত ২৩ রান করে ফিরে যান শরাফু। দলীয় ৮৩ রানে ব্যক্তিগত ৪৩ রান করে ফিরে যান পরশরও। এরপর আর কেউই তেমন বড় স্কোর গড়তে পারেন নি। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে শেষ পর্যন্ত ৪৮.১ ওভারে ১৪৮ রানে অলআউট হয় আরব আমিরাত।

বাংলাদেশের হয়ে তিন উইকেট শিকার করেন রিপন মন্ডল। দুইটি করে উইকেট নেন আশিকুর রহমান ও তানজিম হাসান সাকিব। অধিনায়ক রাকিবুল হাসান ও আরিফুল ইসলাম নেন একটি করে উইকেট।

এই ম্যাচে জয়ের ফলে বাংলাদেশের কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত হয়ে গেছে। সেই সাথে নিশ্চিত হয়েছে আসরটির কোয়ার্টার ফাইনালের লাইন আপও। কোয়ার্টার ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে লড়বে টাইগার যুবারা।

কোয়ার্টার ফাইনালের সূচি
২৬ জানুয়ারি : ইংল্যান্ড-দক্ষিণ আফ্রিকা
২৭ জানুয়ারি : শ্রীলংকা-আফগানিস্তান
২৮ জানুয়ারি : পাকিস্তান-অস্ট্রেলিয়া
২৯ জানুয়ারি : বাংলাদেশ-ভারত