দুর্বৃত্তদের গুলিতে আহত পুলিশ সদস্য ৫, গ্রেফতার ১

108

কক্সবাজারের চকরিয়ায় সালিশ বৈঠকে হত্যার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের অভিযান চলাকালে পুলিশের উপর আসামিদের হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে। এতে পুলিশের পাঁচ সদস্য আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। পরে ঘটনাস্থল থেকে একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) মধ্যরাতে চকরিয়া উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নের ঠুটিয়াখালী এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা আরও পাঁচজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছে। আহত পুলিশ সদস্যদের মধ্যে ২ জন উপ-পরিদর্শক (এসআই) ও ৩ জন কনস্টেবল ছিলেন। তারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে চিকিৎসা নিয়ে বিশ্রামে রয়েছেন বলে জানানো হয়েছে।

গুলিবিদ্ধ অবস্থায় গ্রেফতার হওয়া মোহাম্মদ সাগর (২৮) চকরিয়ার বদরখালী ইউনিয়নের ঠুটিয়াখালী এলাকার আব্দুল জলিলের ছেলে।

এর আগে, রোববার দুপুরে চকরিয়ার বদরখালীতে ‘বদরখালী সমবায় সমিতির’ কার্যালয়ের সামনে জমি সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে সালিশি বৈঠকে প্রতিপক্ষের হামলায় জয়নাল আবেদীন ওরফে বদন (৪০) নামের এক ব্যাক্তি নিহত হন। এ ঘটনায় আহত হয় আরও চারজন।

ওসি ওসমান গনি বলেন, জয়নাল আবেদীন ওরফে বদন হত্যার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারে পুলিশের একটি দল রোববার মধ্যরাতে চকরিয়ার বদরখালী ইউনিয়নের ঠুটিয়াখালী এলাকায় অভিযান চালায়। এসময় একদল দুর্বৃত্ত লাঠি ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে পুলিশের উপর হামলা চালায়। এক পর্যায়ে হামলাকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এতে চকরিয়া থানায় কর্মরত ৫ পুলিশ সদস্য আহত হয়।

আত্মরক্ষার্থে পুলিশ পাল্টা গুলি ছুড়লে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। এসময় ঘটনাস্থল গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত একজনকে পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। এই ব্যক্তি থেকে হামলাকারীদের ছোড়া গুলিতেই আহত হয় বলে দাবি পুলিশের।

তিনি আরও বলেন, জয়নাল আবেদীন ওরফে বদন হত্যার ঘটনায় সোমবার বিকাল পর্যন্ত কোনো মামলা দায়ের হয়নি। নিহতের স্বজনরা এজাহার জমা দিলে মামলা নথিভুক্ত করা হবে।