নেইমারকে ছাড়াই বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব

130

লাতিন আমেরিকা অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে শুক্রবার ভোরে নেইমারকে ছাড়া ইকুয়েডরের বিপক্ষে মাঠে নামবে ব্রাজিল। একই দিন ভোরে মেসিবিহীন আর্জেন্টিনা মুখোমুখি হবে চিলির।

শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) বাংলাদেশ সময় রাত ৩টায় ইকুয়েডরের বিপক্ষে মাঠে নামবে ব্রাজিল। একই দিন ভোর ৬টা ১৫ মিনিটে মাঠে নামবে আর্জেন্টিনা।

বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে কনমেবল থেকে ইতোমধ্যে কাতারের টিকেট নিশ্চিত করেছে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা। তাই লাতিন আমেরিকা অঞ্চলের দুই তারকা ফুটবলার লিওনেল মেসি ও নেইমারকে ছাড়া মাঠে নামলে খুব একটা অসুবিধা হওয়ার কথা না দেশ দুটির। জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে সূচিতে থাকা দুই ম্যাচে আর্জেন্টিনার স্কোয়াডে মেসি নেই, সেটা আগেই জানা গিয়েছিল। তবে এবার তার পিএসজি সতীর্থ নেইমারকেও স্কোয়াডে পাচ্ছেনা রবের্তো ফিরমিনোরা।

এদিকে নেইমারকে ছাড়া ইকুয়েডরের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাই ম্যাচ বেশ কঠিন হবে বলে মন্তব্য করেছেন ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার ক্যাসেমিরো। একই সঙ্গে ইকুয়েডরের কন্ডিশনে খেলাটাও বেশ চ্যালেঞ্জিং হবে বলে মনে করেন তিনি। এদিকে চিলির বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাই ম্যাচে অংশ নিতে চিলিতে অবস্থান করছে আর্জেন্টিনা। এই ম্যাচে বিশ্রামে রাখা হয়েছে লিওনেল মেসিকে। মূলত করোনার ধকল কাটিয়ে পুরোপুরি ফিট হয়ে ওঠার জন্য মেসিকে স্কোয়াডে রাখেননি আর্জেন্টাইন কোচ। 

চলতি মাসের ২রা জানুয়ারি কোভিড টেস্টে মেসির শরীরে করোনা ধরা পড়ে। এরপর ৬ জানুয়ারি দ্বিতীয় টেস্টে তাকে নেগেটিভ ঘোষণা করা হয়। এর মধ্যে প্যারিসে ফিরে গিয়ে পিএসজির হয়ে সোমবার (২৪ জানুয়ারি) রেইমসের বিপক্ষে মাঠে নামতে দেখা যায় মেসিকে। ৪-০ গোলের ব্যবধানে জয়ের ম্যাচে মেসি গোল করতে না পারলেও সতীর্থদের দিয়ে একটি গোল করান। করোনার ধকল কাটিয়ে ফিরে আসা মেসিকে ম্যাচের ৬৩তম মিনিটে মাঠে নামান কোচ। তবে আগামী ১ ফেব্রুয়ারি নিসের বিপক্ষে ম্যাচে তাকে শুরুর একাদশে দেখা যেতে পারে।

এর আগে গত বছরের নভেম্বরে লিগ ওয়ানের ম্যাচে সেন্ট এতিয়েনের বিপক্ষে গুরুতর আহত হয়ে মাঠ ছাড়েন নেইমার। তার পায়ের গোড়ালির ইনজুরি এতটাই প্রখর ছিল যে দুই মাস পেরিয়ে গেলেও এখনো মাঠে নামা হয়নি তার। এমন অবস্থায় ব্রাজিল কোচের বিবেচনায় নেইমারকে বিশ্রামে রাখাটাই শ্রেয়। আর দলের তারকা ফুটবলার না থাকলেও যে খুব একটা ক্ষতি নেই। কারণ ইতোমধ্যে দল পৌঁছে গেছে বিশ্বকাপের মূল পর্বে।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ১৩ ম্যাচে ১১ জয় ও ২ ড্রয়ে ৩৫ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে ব্রাজিল। সমান ম্যাচে ৮ জয় ও ৫ ড্রয়ে ২৯ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দুইয়ে আর্জেন্টিনা। ১৪ ম্যাচে ৭ জয় ও ২ ড্রয়ে ২৩ পয়েন্ট নিয়ে কনমেবল থেকে কাতার যাত্রার পথে এক পা দিয়ে রেখেছে ইকুয়েডর।